চট্টগ্রাম   শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১  

শিরোনাম

রেলে চেপে সাতকানিয়াবাসী বাড়ি যাচ্ছে কবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক    |    ০৩:৩৪ পিএম, ২০২০-১১-০৫

রেলে চেপে সাতকানিয়াবাসী বাড়ি যাচ্ছে কবে?

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত অগ্রাধিকার প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম দোহাজারী-ঘুমধুম রেলপথ প্রকল্প। দক্ষিণ চট্টগ্রামের বুকচিরে এগিয়ে চলা এই প্রকল্পের কাজ সাতকানিয়া অংশে ইতোমধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে। করোনার কারণে কাজ কয়েকমাস বন্ধ থাকলেও এখন পুরোদমে শুরু হয়েছে কাজ।

১৮ হাজার ৩৪ কোটি টাকার এই প্রকল্প ঘিরে দক্ষিণের জনপদের অন্যান্য সবার মত সাতকানিয়াবাসীরও আগ্রহের শেষ নেই। 

দোহাজারী স্টেশন থেকে একটু সামনে এগুলেই সাঙ্গু নদী। এই নদীর উপর চলছে রেলসেতু নির্মাণের কাজ। এই সেতু নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। তারপর শুরু সাতকানিয়া অংশ, শেষ হয় সাতয়ানিয়া সদর ইউনিয়নে গিয়ে। কেঁওচিয়া অংশে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের উপর নির্মাণ হবে একটি ফ্লাইওভার। সাতকানিয়া পৌরসভায় নির্মাণ হচ্ছে একটি জংশন। 

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, দোহাজারী থেকে রামু পর্যন্ত ৮৮ কিমি রামু থেকে কক্সবাজার ১২ কিমি এবং রামু থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত ২৮ কিমি রেলপথ নির্মাণ হচ্ছে। ১২৮ কিলোমিটাত রেলপথে স্টেশনের সংখ্যা থাকছে ৯টি। এগুলো হলো- সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, চকরিয়ার সাহারবিলের রামপুর, ডুলাহাজারা, ঈদগাঁও, রামু, কক্সবাজার, উখিয়া ও ঘুমধুম। 

এতে কম্পিউটার বেইজড ইন্টারলক সিগন্যাল সিস্টেম থাকবে ৯টি, ডিজিটাল টেলিকমিউনিকেশন সিস্টেম থাকবে ৯টি। 

সাঙ্গু, মাতামুহুরী ও বাঁকখালী নদীর ওপর নির্মাণ করা হচ্ছে সেতু। এ ছাড়া ৪৩টি মাইনর সেতু, ২০১টি কালভার্ট, সাতকানিয়ার কেঁওচিয়া এলাকায় একটি ফ্লাইওভার, ১৪৪টি লেভেল ক্রসিং এবং রামু ও কক্সবাজার এলাকায় দুটি হাইওয়ে ক্রসিং নির্মাণ করা হচ্ছে। 

প্রকল্প কর্মকর্তারা জানান, বর্তমানে পুরো প্রকল্পের প্রায় ৪৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। কিছু জমি অধিগ্রহণের কাজ বাকি আছে। প্রকল্প এলাকায় বেশ কয়েকটি বিদ্যুতের পুল রয়েছে, সেগুলো সরানো হচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ২০২২ সালের ৩০ জুনের মধ্যেই সম্পন্ন হবে দোহাজারী-রামু-ঘুমধুম রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের ১২৮ কিলোমিটার রেলপথ।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রেললাইনটি স্থাপিত হলে দেশের পূর্বমুখী যোগাযোগ ব্যবস্থায় দারুণ উন্নতি ঘটবে। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ প্রবেশ করতে পারবে ট্রান্স এশিয়ান রেললাইন করিডোরে। প্রস্তাবিত ট্রান্স এশিয়ান রেলওয়ে করিডোর অনুযায়ী বাংলাদেশ অংশের দর্শনা, ঈশ্বরদী, যমুনা সেতু, জয়দেবপুর, টঙ্গী, আখাউড়া, চট্টগ্রামের দোহাজারী ও কক্সবাজারের ঘুমধুম হয়ে মিয়ানমারে প্রবেশ করবে। 

এতে মিয়ানমার-চীনসহ ট্রান্স এশিয়ান রেললাইন লিংকের ২৭টি দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের রেল নেটওয়ার্ক গড়ে উঠবে।

সাতকানিয়া সদর ইউনিয়নের বাসিন্দা ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী আরমান হোছাইন এ বিষয়ে বলেন, ‘আমরা একসময় স্বপ্ন দেখতাম, রেললাইনে চেপে আমাদের গ্রামের বাড়িতে যাতায়াত করবো। এটি এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তবে রূপ পাচ্ছে সেই স্বপ্নের রেললাইন। আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট কৃতজ্ঞ।’

উল্লেখ্য,২০১১ সালের ৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম-দোহাজারী ভায়া ঘুমধুম রেললাইন প্রকল্পটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছিলেন।

রিটেলেড নিউজ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পর্যালোচনায় চট্টগ্রামের প্রথম 'সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স'

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পর্যালোচনায় চট্টগ্রামের প্রথম 'সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স'

: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পর্যালোচনায় চট্টগ্রাম জেলার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোর মধ্যে প্রথম ...বিস্তারিত


প্রধানমন্ত্রীর বিছক্ষনতায় করোনায়ও চলছে উন্নয়নের গতি

প্রধানমন্ত্রীর বিছক্ষনতায় করোনায়ও চলছে উন্নয়নের গতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : 'প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিছক্ষনতার কারণে করোনায়ও থেমে নেই দেশের উন্নয়নের গতি। আওয়া...বিস্তারিত


সাতকানিয়া চরপাড়ায় বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতার বই বিতরণ

সাতকানিয়া চরপাড়ায় বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতার বই বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাতকানিয়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবা ভাতা বই বিতরণ করা হয়েছে।  স্বাস্থ্...বিস্তারিত



সর্বপঠিত খবর

সাতকানিয়ার ইয়াবা ব্যবসায়ী কোতোয়ালিতে ধরা

সাতকানিয়ার ইয়াবা ব্যবসায়ী কোতোয়ালিতে ধরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : দুই হাজার পিচ ইয়াবাসহ হাতেনাতে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত আর...বিস্তারিত


বারদোনায় মুসল্লিদের বিরুদ্ধে মামলা

বারদোনায় মুসল্লিদের বিরুদ্ধে মামলা

: উপজেলার বারদোনা মছন আলী সওদাগর ওয়াকফ স্টেট মৌলা পাড়া জামে মসজিদের সম্পত্তি থেকে অবৈধভাবে মাটি কে...বিস্তারিত



সর্বশেষ খবর